কক্সবাজার সৈকতে ২ দিনে ১১ লাশ

-সুগন্ধা-সৈকত-থেকে-৬-জনের-মরদেহ-উদ্ধার.jpg

কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে ভেসে এলো আরো পাঁচ জেলের লাশ। এ নিয়ে গত দুই দিনে ট্রলারডুবির ঘটনায় মৃতদেহ উদ্ধারের সংখ্যা দাঁড়ালো ১১ জন। গতকাল রাত ৯টা থেকে ১০টার মধ্যে কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের বিভিন্ন জায়গা থেকে তাদের লাশ উদ্ধার করা হয়। ঝড়ের কবলে পড়ে মাছ ধরার ট্রলার ডুবে তাদের মৃত্যু হয়। কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোছাইন জানান, বৃহ¯পতিবার দুপুরে হিমছড়ি থেকে এক জন, মহেশখালীর হোয়ানক থেকে ১ জন, রাত ১০টার দিকে কক্সবাজারের সমিতি পাড়া থেকে ৩ জনের মরদেহ উদ্ধার হয়েছে। উদ্ধার হওয়া জেলেদের মধ্যে ৬ জনের পরিচয় মিলেছে।

এরা হলেন- ভোলার চরফ্যাশনের পূর্ব মাদ্রাসা এলাকার তরিফ মাঝির ছেলে কামাল হোসেন (৩৫), চরফ্যাশনের উত্তর মাদ্রাসা এলাকার নুরু মাঝির ছেলে অলি উল্লাহ (৪০), একই এলাকার ফজু হাওলাদারের ছেলে অজি উল্লাহ (৩৫), মৃত আব্দুল হকের ছেলে মো. মাসুদ (৩৮), শহিদুল ইসলামের ছেলে বাবুল মিয়া (৩০) ও নজিব ইসলামের ছেলে জাহাঙ্গীর আলম। পরিচয় শনাক্ত হওয়া ৬ জনকে স্বজনের কাছে হস্তান্তরের প্রক্রিয়া চলছে।

জীবিত উদ্ধার হওয়া মনির আহমদ মাঝি জানান, গত ৪ জুলাই ভোলার চরফ্যাশনের শামরাজ ঘাট
থেকে তারা মাছ ধরার উদ্দেশ্যে সাগরে পাড়ি দেয়। মোট ১৪ জন এই ট্রলারে ছিলেন। গত ৬ জুলাই ভোরে হঠাৎ ঝড়ো হাওয়া ও উত্তাল ঢেউয়ের তোড়ে ট্রলারটি থেকে ছিটকে পড়ে জেলেরা।  -ডেস্ক নিউজ

আপনার মন্তব্য লিখুন