কক্সবাজারে প্রথম দিন ব্যস্ত সময় পার করলেন মিয়ানমারের আইসিওই তদন্ত দল

ICOE-2-6rh39zi44plk54se9xyprecer8w97svqid0hfugrps0.jpg

কক্সবাজারে সফরে প্রথমদিন ব্যস্ত সময় পার করেছে মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গাদের ওপর নির্যাতনের বিষয় তদন্তের জন্য গঠিত ‘ইন্ডিপেন্ডেন্ট কমিশন অফ ইনকোয়ারি’(আইসিওই) তদন্ত দল।

সোমবার সকাল ১১টার দিকে দলটি কক্সবাজার বিমানবন্দরে পৌছায়। সেখান থেকে রয়েল টিউলিপ হোটেলে বিশ্রাম নেন। তারপর দুপুর ১টার দিকে শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালামের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। এসময় জেলা পলিশ সুপার এবিএম মাসুদ হোসেনও ফিলেন।

তদন্ত কমিশনের নেতৃত্ব দেন ফিলিপাইনের সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী রোজারিও মানালো, কমিশনের অন্য সদস্যরা হলেন- মিয়ানমারের সাংবিধানিক ট্রাইব্যুনালের সাবেক চেয়ারম্যান মিয়া থেইন, জাতিসংঘে জাপানের সাবেক স্থায়ী প্রতিনিধি কেনজো ওশিমা এবং ইউনিসেফের সাবেক জ্যেষ্ঠ কর্মকর্তা ড. অন তুন থেট।

এরপর বিকালে আইসিওই দলটি ইউনাইটেড ন্যাশনস হাই কমিশনার ফর রিফিউজিসের (ইউএনএইচসিআর) প্রতিনিধির সঙ্গে বৈঠক করেন।

কক্সবাজার শরণার্থী ত্রাণ ও প্রত্যাবাসন কমিশনার আবুল কালাম জানান, ‘মঙ্গলবার সকালে উখিয়ার কুতুপালং সহ বিভিন্ন রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করবে মিয়ানমারের তদন্ত দলটি।২২ নম্বর ক্যাম্পে তারা দুই শতাধিক নারী-পুরুষের সাক্ষ্য নিবেন।

তবে আমরা আইসিওই তদন্তকে বলেছি, যারা সাক্ষ্য দেবেন তাদের নিরাপত্তার বিষয়টি মাথায় রাখতে।

উল্লেখ্য, মিয়ানমার সরকার কর্তৃক গঠন করা “ইন্ডিপেন্ডেন্ট কমিশন অফ ইনকোয়ারি’র কাজ হচ্ছে রাখাইনে মানবাধিকার লঙ্ঘনের অভিযোগগুলো তদন্ত করা এবং দোষী ব্যক্তিদের দায়বদ্ধতা নিশ্চিত করা।

ওই কমিশনের একটি প্রতিনিধি দল চার দিনের সফরে শনিবার ঢাকায় আসে।কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কাজ শেষে মঙ্গলবার বিকালে বিমানে ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা দেবে।

আপনার মন্তব্য লিখুন