ঐক্যফ্রন্টের আকার বাড়ছে?

Screenshot_2018-10-19-23-02-52-411_com.android.chrome.jpg

দিসিএম ডেস্ক

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টে আরও কয়েকটি দল যোগ দিতে পারে। ইতিমধ্যে কয়েকটি ছোট রাজনৈতিক দলের সঙ্গে ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের আলাপ হয়েছে বলে জোটের নীতিনির্ধারকেরা জানিয়েছেন।

সরকারবিরোধী এই জোটের নেতারা শুরু থেকেই বলে আসছেন, জামায়াতে ইসলামী ছাড়া যে কেউই তাঁদের ঐক্যে আসতে পারবে।

আজ শুক্রবার বিকেলে রাজধানীর ধানমন্ডিতে নাগরিক ঐক্যের নেতা মোবারক খানের বাসায় জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের বৈঠক হয়। সেখানে সমন্বয় কমিটি ও স্টিয়ারিং কমিটির গঠন হয়। এ জোটের একটি সূত্র প্রথম আলোকে জানায়, আজকের বৈঠকটিতে আরও কয়েকটি দলের অন্তর্ভুক্ত হওয়া নিয়ে আলোচনা হয়। এদের মধ্যে বিএনপি নেতৃত্বাধীন ২০–দলীয় জোটের শরিক বাংলাদেশ কল্যাণ পার্টির চেয়ারম্যান মেজর জেনারেল (অব.) সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমের যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

সূত্রটি জানায়, উদারমনা আরও কিছু মানুষকে এ জোটে আসার জন্য বলা হবে। এ ছাড়া পাঁচ-ছয়টি দল ঐক্যফ্রন্টে যোগ দেওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কয়েক দিনের মধ্যেই নতুন দলগুলোর যোগ দেওয়ার ঘোষণা আসতে পারে।

ঐক্যফ্রন্টে এখন চারটি দল আছে। এগুলো হলো গণফোরাম, বিএনপি, জাসদ (জেএসডি) ও নাগরিক ঐক্য। এ ছাড়া এই জোটে নিজেদের মূল বিকল্পধারা দাবি করা নুরুল আমিন ব্যাপারীর অংশটিও শিগগিরই যুক্ত হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেলে রাজধানীর হোটেল লেকশোরে কূটনীতিকদের ব্রিফ করেন নবগঠিত ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। বৈঠকের গণফোরামের সভাপতি ড. কামাল হোসেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ৭ দফা ও ১১টি লক্ষ্যের বিষয়ে কূটনীতিকদের অবহিত করেন। সেখানে কূটনীতিকরা ঐক্যফ্রন্টের কাছে বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চান।

কূটনীতিকদের বৈঠকেও ঐক্যফ্রন্ট সম্প্রসারণ ও জামায়াতের ব্যাপারে জোটের অবস্থানের বিষয়ে কূটনীতিকরা জানতে চান। সেখানে কামাল হোসেন তাঁদের জানান, জামায়াত ছাড়া সব দলকেই তাঁরা স্বাগত জানাবেন।

এ ছাড়া বিকল্পধারা বাংলাদেশ থেকে বহিষ্কৃত ও বেরিয়ে আসা কয়েকজন মিলে আজ শুক্রবার সকালে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে নতুন বিকল্পধারা গঠন করেন। বিকল্পধারার নতুন অংশটির সভাপতি করা হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক নুরুল আমিন ব্যাপারীকে আর মহাসচিব হয়েছেন শাহ আহম্মেদ বাদল। জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গড়তে বিকল্পধারার আরেক অংশের নেতা এ কিউ এম বদরুদ্দোজা চৌধুরী অনেকবার বৈঠক করেন নবগঠিত ঐক্যফ্রন্টের নেতাদের সঙ্গে। তবে ১৩ অক্টোবর শনিবার বিকেলে বি চৌধুরীর বিকল্পধারা ছাড়াই জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গঠিত হয়।

আপনার মন্তব্য লিখুন