উখিয়ার সাবেক ইউএনও’র দেওয়া প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়ন করলেন এসিল্যান্ড

IMG_20181009_221511.jpg

শফিক আজাদ,

আব্দুল গণি (২৫) পিতাঃ মৃত-মোসলেম মিয়া, গ্রাম-উখিয়া সদর। সকলের পরিচিতি মুখ। প্রশাসনের লোকজন থেকে শুরু সকলস্তরের মানুষের সাথে রয়েছে তার সু-সম্পর্ক। তবে পৈত্রিক সম্পত্তি বা স্থায়ী কোন বসতভিটা নেই গণির। সরকারি জায়গায় ঝুপড়ি নির্মাণ করে কোন রকম জীবন-যাপন করে আসছিল দীর্ঘদিন থেকে। গত এক বছর পূর্বে বিয়ে করে গণি। প্রশাসনের লোকজনের সাথে অতি সুসম্পর্ক থাকায় বিয়ের আমন্ত্রণ পান তৎকালীণ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ মাঈন উদ্দিন ও সহকারি কমিশনার (ভূমি) নুরুদ্দিন মুহাম্মদ শিবলী নোমান। উখিয়ার এই দুই প্রশাসনের অভিভাবককে কাছে পেয়ে আব্দুল গণি তাঁর মনের কথা অভিব্যক্ত করেন। সেইদিন ইউএনও এবং এসিল্যান্ড ঘোষণা দিয়েছিলেন তার মাথা গুছার জন্য এক খন্ড জমির ব্যবস্থা করবেন। এ নিয়ে স্হানীয়  নিউজ পোর্টালে  এক প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়। শিরোনাম ছিল ‘বিয়ে করেই কপাল খুললো উখিয়ার গনির ’ কিন্তু ওই দুই কর্মকর্তার অন্যত্রে বদলী হয়ে যায়। বর্তমান সহকারি কমিশনার (ভূমি) ইকরামূল ছিদ্দিক বিষয়টি জানতে পেরে নিজ উদ্যোগে সরকারি এক খন্ড জমির মালিকানার ব্যবস্থা করে দেন গণিকে। যার দলিল মঙ্গলবার বিকেলে গণিকে হস্তান্তর করেন এসিল্যান্ড। এতে মহাখুশি আব্দুল গণি ও তার পরিবার। তাৎক্ষণিক এক প্রতিক্রিয়ায় গণি বলেন, আসলে এমন মহৎ লোকজন প্রশাসনে রয়েছে বলে আমাদের মতো অবহেলিত মানুষেরা অন্তত মাথা গুছার জন্য এক খন্ড জমির মালিক হতে পেরেছি। এতে সরকার এবং সহকারি কমিশনার (ভূমি)’র প্রতি অশেষ শুকরিয়া জ্ঞাপন করেন তিনি।

আপনার মন্তব্য লিখুন