ইমরান মনে রেখেছেন, সরফরাজ তাঁর কথা শোনেননি

348e1269646275bc8809205185ff3879-5d65090fcb88b.jpg

আরেকটি বিশ্বকাপ চলে গেছে, আরেকটি ভারত-পাকিস্তান ম্যাচও হয়ে গেছে। ঐতিহ্য বদলানো যায়নি, ভারতকে বিশ্বকাপের ম্যাচে হারাতে পারেনি পাকিস্তান। সে ম্যাচের স্মৃতিতে ধুলো জমেছে। কম তো নয়, আড়াই মাস হতে চলেছে। কিন্তু হারের দগদগে ক্ষত এখনো আড়াল করতে পারছে না পাকিস্তান। স্বয়ং ইমরান খানই কীভাবে সে হার এড়ানো যেত তা নিয়ে কথা বলছেন এখনো।

বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক এখন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু ১৬ জুনের সে ম্যাচের আগে ব্যস্ত সূচির মাঝেও সময় বের করে নিয়েছিলেন। উত্তরসূরিদের জন্য টানা পাঁচটি টুইটারে কিছু পরামর্শ দিয়েছিলেন ম্যাচ নিয়ে। কিন্তু তাঁর সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পরামর্শই শোনেননি বর্তমান অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদ। এ নিয়ে গতকাল সরফরাজকে খোঁচা দিয়েছেন ইমরান। জিও টিভি জানিয়েছে, এক অনুষ্ঠানে সরফরাজের উদ্দেশ্যে নাকি ইমরানকে বলতে শোনা গেছে, ‘তুমি টস জিতলেই ব্যাট করতে হবে, কখনো পরে ব্যাট করবে না। এটাই হলো সঠিক মানসিকতা। সারা জীবন এ নিয়ে দ্বিধা থাকবেই।’

এ বিশ্বকাপের আগে ছয়বার ভারতের কাছে হেরেছে পাকিস্তান। ফলে এবারে জয় পাওয়ার জন্য উন্মুখ হয়েছিল তারা। এ কারণে ম্যাচের আগে সবাই নানা রকম পরামর্শ দিচ্ছিল। ইমরান খানও আশা দেখছিলেন। সরফরাজের অধিনায়কত্বে এই ভারতকে হারিয়েই চ্যাম্পিয়নস ট্রফি জেতায় আশাও জেগেছিল। ম্যাচের আগে সরফরাজের প্রশংসা করে টুইট করেছিলেন ইমরান। বলেছিলেন, ‘আমাদের ভাগ্য ভালো সরফরাজের মতো সাহসী এক অধিনায়ক আছে এবং আজ (ম্যাচের দিন) ওকে তার সাহসের চূড়ান্ত দেখাতে হবে।’ এরপর ম্যাচের জন্য উপদেশ দিয়েছিলে, ‘উইকেট যদি ভেজা না থাকে তবে অবশ্যই টসে জিতে ব্যাটিং নিতে হবে।’

সরফরাজ অবশ্য বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক ও বর্তমান প্রধানমন্ত্রীর কথা কানে তোলেননি, টসে জিতে ঠিকই ভারতকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছেন। ফলাফল, রোহিত শর্মার ১৪০ ও রাহুল-কোহলির দুই ফিফটিতে ৩৩৬ রানের পাহাড় গড়েছিল ভারত। ব্যাটিংও ভালো হয়নি। ইনিংসের মাঝ পথে ধস নামার পর পাকিস্তান সেদিন বৃষ্টি আইনে ৮৯ রানে হেরে গিয়েছিল। বিশ্বকাপে পরে রানরেটের হিসাবে সেমিফাইনাল খেলা হয়নি পাকিস্তানের। এ ম্যাচ জিতলেই আর ওসব হিসাবনিকাশে যেতে হতো না পাকিস্তানকে। ভারতের বিপক্ষে জয়টাও আর অধরা থাকত না।

ইমরান তাই ভালোভাবেই সরফরাজের টসের সিদ্ধান্ত মনে রেখেছেন।

আপনার মন্তব্য লিখুন